বেশি খরচ নেওয়ার জন্য রাজ্যের চারটি হাসপাতালকে জরিমানা করল স্বাস্থ্য কমিশন

0
224

গত আগস্ট মাস থেকেই করোনা হাসপাতাল গুলোতে করোনার চিকিত্‍সার জন্য সমস্ত খরচ নির্ধারিত করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু তা সত্ত্বেও রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে এখনো বেআইনি ভাবে নেওয়া হচ্ছে বাড়তি টাকা। এমন তাই অভিযোগ উঠলো বিভিন্ন রোগীদের কাছ থেকে। এবং এই অভিযোগের জন্য রাজ্যের চারটি হাসপাতালকে জরিমানা করল স্বাস্থ্য কমিশন। সূত্রের খবর অনুযায়ী, ওই চারটি হাসপাতালের মধ্যে রয়েছে, মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল, ফর্টিস হাসপাতাল, বেলেঘাটার ডিভাইন হাসপাতাল ও বিপি পোদ্দার হাসপাতাল।

মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয় যে, স্যানিটাইজারের জন্য ৫০ টাকা বেঁধে দেওয়া সত্ত্বেও তাঁর কাছ থেকে ২৫০ টাকা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, সফটওয়ারে ত্রুটির জন্য ওই ভুল হয়েছিল। পরে তাঁদের টাকা ফেরত দিতে চাইলেও রোগী তা নেননি। তবে স্বাস্থ্য কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী স্যানিটাইজেশন বাবদ অতিরিক্ত টাকা যত জনের কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে, তাঁদের চিহ্নিত করে ফেরত দিতে হবে। এর পাশাপাশি, সামাজিক দায়বদ্ধতা খাতে মেডিকাকে ১০ লক্ষ টাকা ব্যয় করতে হবে লেডি ব্রেবোর্ন কলেজের আশপাশে শিশুদের অপুষ্টির সমস্যা দূর করার জন্য।

অন্যদিকে, ওষুধ বাবাদ বাড়তি খরচ করানোর অভিযোগ দায়ে করা ফর্টিস হাসপাতালের বিরুদ্ধে। এক রোগীকে ১ লক্ষ টাকা ফেরত দিতে বলেছে স্বাস্থ্য কমিশন। এদিকে কোভিড রোগীর চিকিত্‍সায় অতিরিক্ত বিলের অভিযোগ উঠেছে বেলেঘাটা ডিভাইন হাসপাতাল ও বিপি পোদ্দার হাসপাতালের বিরুদ্ধেও। তাদেরও স্বাস্থ্য কমিশন ডিভাইন হাসপাতালকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা ফেরত দিতে নির্দেশ দিয়েছে। ১ লক্ষ ৮৪ হাজার ৮০০ টাকা ফেরত দিতে হবে বিপি পোদ্দার হাসপাতালকে। স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান অসীম বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “এটা অন্য বেসরকারি হাসপাতালগুলোর জন্য বার্তা। আমরা খরচের যে গাইডলাইন দিয়েছি, তা যেন মেনে চলা হয়।”

Advertisement

Leave a Reply