নবান্নে মন্ত্রীসভার বৈঠকে গরহাজির শুভেন্দু-রাজীব, অনুপস্থিতির কারণ না দেখানোয় তুঙ্গে জল্পনা !

0
225

#নবান্ন: আজ নবান্নের মন্ত্রীসভার বৈঠকে গরহাজির থাকলেন সম্প্রতি বহুচর্চিত পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এবং বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি, তাঁরা দুজনে অনুপস্থিত থাকার কারণ অবধি জানানোর প্রয়োজন মনে করেননি। ঠিক সেই কারণেই এই মুহূর্তে জল্পনা তুঙ্গে। উল্লেখ্য, আজকের বৈঠকে গৌতম দেব এবং রবীন্দ্রনাথ ঘোষও উপস্থিত থাকতে পারেননি। গৌতম দেব করোনায় আক্রান্ত, এবং শারীরিক অসুস্থতার কারণে আসতে পারেননি বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রনাথবাবু।

স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যের দুই মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে তৈরি হয়েছে বিস্তর জল্পনা। শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান এখনো অবধি পরিষ্কার নয়। অন্যদিকে, শুভেন্দুর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ হাওড়ার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে তাদের অনুপস্থিতির নিয়ে রাজনৈতিক মহলে যথেষ্ট জলঘোলা হচ্ছে।

বিগত কয়েক দিন ধরেই শুভেন্দু অধিকারী বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছেন। অরাজনৈতিক মঞ্চে সভা করছেন, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম কদাপি নিচ্ছেন না। গতকাল নন্দীগ্রামের সভা থেকে একাধিক বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী। তিনি বলেন, “১৩ বছর পর নন্দীগ্রামের কথা মনে পড়ল! এই সভায় আমি নতুন নয়।” মনে করা হচ্ছে তৃণমূলের ফিরহাদ হাকিমকে কটাক্ষ করেই এই মন্তব্য। তাঁর মুখে ‘ভারত মাতা জিন্দাবাদ’ শোনা যায়।

Advertisement

অন্যদিকে, বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরেও তৃণমূলের অন্দরে গোষ্ঠীকোন্দলের আঁচ পাওয়া যাচ্ছে। এমনকি, এই নিরিখে সম্প্রতি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, অরূপ রায় এবং লক্ষ্মীরতন শুক্লাকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রশান্ত কিশোর। সূত্রের খবর, ভোটের আগে তিন নেতার কোন্দল মেটাতেই ওই বৈঠক ডাকা হয়েছিল। সেই কারণে আজকের মন্ত্রীসভার বৈঠকে রাজীবের গরহাজির নিয়ে রাজনৈতিক মহলে নয়া জল্পনার সৃষ্টি হচ্ছে।

Leave a Reply