৩০ নভেম্বরের মধ্যেই বকেয়া ফি না দিলে ক্লাস করতে পারবে না পড়ুয়ারা, ইমেল মারফত নোটিস পাঠালো স্কুল কর্তৃপক্ষ

0
69

#কলকাতা:   ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই বকেয়া ফি দিতে হবে আর তা না হলে ৮ ডিসেম্বরের পর থেকে ক্লাসে অংশগ্রহণ থেকে বাদ যেতে পারে পড়ুয়ারা। বুধবার থেকে অভিভাবকদের ইমেল মারফত এই নোটিস পাঠাতে শুরু করেছে লা মার্টিনিয়ার স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী অভিভাবকদের ইমেল করে বলা হচ্ছে অবিলম্বে বকেয়া টাকা দেওয়ার জন্য।

এ প্রসঙ্গে লা মার্টিনিয়ার স্কুলের সেক্রেটারি সুপ্রিয় ধর বলেন ” হাইকোর্টের নির্দেশ রয়েছে সেই অনুযায়ী আমরা ৩০ নভেম্বরের মধ্যে বকেয়া ফি দিতে বলেছি। এই সময়সীমার মধ্যে যদি কেউ বকেয়া ফি না দিতে পারে তাহলে ৮ ডিসেম্বরের পর থেকে ক্লাসে অংশগ্রহণের সুযোগ তাকে নাও দেওয়া হতে পারে। আমরা যে নোটিসটি দিয়েছি তা পুরোটাই হাইকোর্টের মোতাবেক।”

তবে এই প্রসঙ্গে স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকা ফি বকেয়া রয়েছে। তবে শুধুমাত্র লকডাউনের সময় থেকে নয়, লকডাউনের আগেও অনেক অভিভাবকই ফি দেননি। তাই অভিভাবকদের ইমেল মারফত এই নোটিস পাঠানো হচ্ছে বলেই দাবি স্কুল কর্তৃপক্ষের। স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, হাইকোর্টের নির্দেশ মোতাবেক লা মার্টিনিয়ার স্কুল কর্তৃপক্ষ রিভাইজড ফি স্ট্রাকচার ও করেছে।স্কুলের সেক্রেটারি জানিয়েছেন, সেই রিভাইজড ফি স্ট্রাকচার অনুযায়ী বকেয়া ফি দেওয়ার কথা বলা হয়েছে অভিভাবকদের।

Advertisement

তবে শুধু লা মার্টিনিয়ার স্কুল নয় কলকাতার বেশ কয়েকটি বেসরকারি স্কুল এই পথে হাঁটতে চলেছে বলেই খবর। ইতিমধ্যেই সাউথ পয়েন্টের তরফে অভিভাবকদের হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী কি কি করনীয় সেই প্রসঙ্গে বিস্তারিত-নোটিস পাঠানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে ইউনাইটেড গার্জেন অ্যাসোসিয়েশনের আহ্বায়ক সুপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, ” অনেক স্কুলই হাইকোর্টের নির্দেশ মানছে না। রিভাইজড ফি স্ট্রাকচার করা হলেও অনেক ক্ষেত্রেই অনেকগুলি নানান রকম গরিমশি করছেন। আমরা এই বিষয়গুলি নিয়ে স্কুল শিক্ষা দফতর ও রাজ্য সরকারের কাছেও ডেপুটেশন দেব। পরবর্তী ক্ষেত্রে আন্দোলনে নামার কথা আমাদের ভাবতে হবে।”

২০ শতাংশ টিউশন ফি মকুব এবং নন-একাডেমিক ফি নিতে পারবেনা স্কুলগুলি। এই অনুযায়ী কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়।কলকাতার বেশিরভাগ বেসরকারি স্কুল কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে। সুপ্রিম কোর্টের এস তাদের আবেদন খারিজ করে জানিয়ে দেয় ফি সংক্রান্ত বিষয়ে হাইকোর্টের নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট কোন হস্তক্ষেপ করবে না।

Leave a Reply