‘মানুষ মহাজোটকে চেয়েছে, কমিশন এনডিএকে জিতিয়েছে’, কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট পুনর্গণনার দাবি তেজস্বী যাদবের

0
127

#তেজস্বী-যাদব: এবার ভোট গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুললেন বিহারের মহাজোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী তথা আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব। যে সকল আসনে তাঁরা সামান্য ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন, সেখানে পুনরায় ভোট গণনার দাবি জানিয়েছেন লালু-পুত্র। তেজস্বী বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী ও নীতীশজি আমাকে হারাতে সমস্ত শক্তি প্রয়োগ করেছিলেন। কিন্ত আরজেডিকে একক বৃহত্তম দল হওয়া থেকে আটকাতে ব্যর্থ হয়েছেন তাঁরা।” তাঁর অভিযোগ, “বিহারের মানুষ মহাজোটকে চেয়েছে কিন্তু কমিশন এনডিএকে জিতিয়ে দিয়েছে।”

প্রসঙ্গত, বিহারে ভোটার ব্যালট গণনা শুরু হতেই প্রাথমিকভাবে অনেকটাই এগিয়েছিল মহাজোট। রাজনীতিবিদরা মনে করছিলেন যে এবার বিপুল সংখ্যা গরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতা আসবে মহাজোট। কিন্তু বেলা গড়াতেই বদলায় ছবি। অবশেষে ১১০টি আসনে জেতে মহাজোট, আর এনডিএ পায় ১২৫টি আসন। এনডিএ’এর এই জয়ের অতিরিক্ত ১৫টি আসনে ভোটের ফারাক একেবারেই নিমিত্তমাত্র, যার জেরেই বিহারে রাজনৈতিক মহলে সৃষ্টি হয়েছে হাজারো বিতর্ক।

আজ সাংবাদিক বৈঠকে আরজেডির তেজস্বী যাদব বলেন যে বিহারে এনডিএ পেয়েছে ৩৭.৩ শতাংশ ভোট আর মহাজোট পেয়েছে ৩৭.২ শতাংশ ভোট। অর্থাৎ ১২ হাজারের চেয়ে সামান্য বেশি ভোট পেয়েছে এনডিএ, আর তাতেই ১৫টি আসন হাসিল করেছে তারা। এই অঙ্কেই গন্ডগোল রয়েছে বলে এদিন অভিযোগ তুলেছেন তেজস্বী। তিনি এই আসনগুলিতে ফের ভোট গণনার দাবি জানিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, ভোট আধিকারিকদের উপর প্রশাসনিক চাপ ছিল।

Advertisement

তেজস্বী বলেন, “প্রার্থীদের প্রশ্ন থাকলে তার উত্তর দেওয়া নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। গোটা গণনা প্রক্রিয়ার ভিডিওগ্রাফি করা হয়েছে।” সেই ভিডিওই প্রকাশ্যে আনার দাবি জানিয়েছেন লালু-পুত্র। ভোট গণনার শুরুতেই পোস্টাল ব্যালট গুনে ফেলতে হয়। এই প্রসঙ্গে তেজস্বীর মন্তব্য, “শিক্ষিত মানুষেরা পোস্টাল ব্যালটে ভোট দেন। ফলে তাতে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কম। অথচ ৮০০-৯০০ ভোট বাতিল হয়েছে। কেন বাতিল হয়েছে, তাও খোলসা করে বলা হয়নি। এটা মেনে নেওয়া যায় না।”

Leave a Reply