সপ্তমবারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে আজ শপথ নিতে চলেছেন নীতিশ কুমার, উপমুখ্যমন্ত্রী পদ ঘিরে জট

0
143

#বিহার_নির্বাচন:  সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে সপ্তমবারের জন্য বিহারের মসনদে বসতে চলেছেন নীতিশ কুমার। শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন যে এনডিএ জোটের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হবে নীতিশ কুমারকেই। সেইমতো কোনো সন্দেহের অবকাশ ছাড়াই আজ শপথ নিতে চলেছেন নীতিশ কুমার। রবিবার‌ নীতিশ কুমার নিজেই নিজ বাসভবন থেকে জানান, তার সাথেই এদিন শপথ নিতে চলেছে বাকি মন্ত্রিসভাও।

কিন্তু শপথ গ্রহণের আগেই উপ-মুখ্যমন্ত্রীর পদ ঘিরে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। এনডিএ জোটে আরজেডির শরিক বিজেপি শুরুতেই স্পষ্ট করে দিয়েছিল যে উপ-মুখ্যমন্ত্রীর পদের সুশীল মোদির জায়গায় তারা অন্য কাউকে নিযুক্ত করতে চায়। তবে বিজেপি নেতৃত্ব নীতিশ ঘনিষ্ঠ কাউকেই যে উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদে বসাতে আগ্রহী নয় সেটা স্পষ্ট হয়ে যায় কিছুক্ষণের মধ্যেই। উত্তরপ্রদেশের মতো বিহারেও তাঁরা দুই উপমুখ্যমন্ত্রীর ফর্মুলাই চালুর কথা বলেন। যে দু’জনের নাম প্রস্তাব করা হয় তাঁরা হলেন – বর্ষীয়ান বিজেপি বিধায়ক তারকেশ্বর প্রসাদ এবং রেণু দেবী। কাটিহারের বিধায়ক তারকেশ্বর কিংবা বেতিয়া থেকে চারবারের জয়ী রেণু দেবী, কেউই নীতীশ ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত নন। প্রাথমিকভাবে বিজেপি নেতৃত্বের কাছে উচ্চবাচ্য করার সাহস না হলেও রাতের দিকে এই দু’জনকে নিয়োগের বিষয়ে বেঁকে বসেন নীতিশ কুমার। এমনকি দুই উপ-মুখ্যমন্ত্রীর বিষয়েও আপত্তি জানান তিনি। এরপরই নীতীশ কুমারের চাপে তারকেশ্বর প্রসাদের বদলে উঠে আসে বিধায়ক কামেশ্বর চৌপালের নাম। এখন শেষ পর্যন্ত দুই উপ-মুখ্যমন্ত্রী নাকি কামেশ্বর চৌপাল, উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদে কার সিদ্ধান্ত বহাল থাকে সেটাই বিহার রাজনীতির মূল আলোচ্য বিষয়।

অন্যদিকে, পদ হারিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন সুশীল মোদি। টুইট করে বিজেপি নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। তবে এই টুইটকে ভালো চোখে নেননি পাটনায় উপস্থিত রাজনাথ সিং, ভুপেন্দ্র যাদবরা। সূত্রের খবর, রাজ্য সভাপতি সঞ্জয় জয়সওয়ালের মাধ্যমে সুশীল মোদীকে জানিয়ে দেওয়া হয় সে কথা। তৎক্ষণাৎ ফলও হয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই আরও দুটি টুইট করে তারকেশ্বর প্রসাদ ও রেণু দেবীকে অভিনন্দন জানান সুশীল৷ পাশাপাশি দিল্লিতে বিজেপি সূত্রের খবর, ক্ষোভ প্রশমন করতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় নিয়ে আসা হতে পারে সুশীল মোদীকে।

Advertisement

Leave a Reply