‘নতুন প্রকল্প বাংলায়, প্রত্যেকের কাছে পরিষেবা পৌঁছবে’, খাতড়ায় প্রশাসনিক জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী

0
55
'নতুন প্রকল্প বাংলায়, প্রত্যেকের কাছে পরিষেবা পৌঁছবে', খাতড়ায় প্রশাসনিক জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী

#বাঁকুড়া, দুদিনের জন্য কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী বাঁকুড়া সফরে গিয়েছেন। এদিন খাতড়ায় প্রশাসনিক জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতা রাখলেন। তিনি বলেন, আজ ১২০০ মানুষের কাছে পরিষেবা পৌঁছচ্ছে। আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে ৩১ জানুয়ারি নতুন প্রকল্প বাংলায় দুয়ারে-দুয়ারে সরকার। প্রতিটি ব্লকে প্রতিদিন সকাল ১১ থেকে ক্যাম্প করা হবে।দশ লক্ষ বাড়িতে পরিষেবা পৌঁছানো হবে। খড়ের বা মাটির বাড়িতে আগে দেওয়া হবে। পাশাপাশি রাজ্যে চাকরির বয়সসীমা বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু ১০০ দিনের কাজের টাকা দেরি করে পাঠায় কেন্দ্র, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর।

তাঁর কথায়, দেশে করোনা পরিস্থিতিতে ৪০% বেকার বেড়েছে। কিন্তু বাংলায় ৪০% শতাংশ বেকার কমেছে।একমাত্র রাজ্যে কোন সরকারি কর্মীর মাইনে বন্ধ হয়নি।বাঁকুড়াতে ৩২ হাজার পরিযায়ী শ্রমিক কাজ পেয়েছেন।এমনকি মাওবাদী হানায় নিরুদ্দেশের পরিবার চাকরি পেয়েছে। জঙ্গলমহলে ১০ হাজার জুনিয়র কনস্টেবলের চাকরি পেয়েছেন।পাশাপাশি তিনি সিপিএম-বিজেপির উপরও আক্রমণ করে বলেন, মামলা -হামলা করা ছাড়া সিপিএম-বিজেপির কোনও কাজ নেই। সম্প্রতি উঠে আসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি অমিত শাহ বাঁকুড়ার এক আদিবাসীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ করেছিলেন।মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষ, ‘স্টার হোটেল থেকে ভাত এনে দলিতের বাড়িতে খায়।বিজেপির এসব ভাঁওতা মানুষ বুঝে গেছে।’

মুখ্যমন্ত্রী জানান, “বিষ্ণপুর ঘরাণার সব শিল্প নিয়ে আর্কাইভ তৈরি করা হচ্ছে।৮ হাজার বিঘা জমিতে মাটি সৃষ্টি প্রকল্পের কাজ চলছে। সব মানুষের বাড়িতে পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার কাজ চলছে। একশ শতাংশ বাড়িতে বিদ্যুত্ পৌঁছানোর ব্যবস্থা হয়েছে। পাশাপাশি আগামী জুন মাস পর্যন্ত বিনা পয়সায় রেশন পাওয়া যাবে।আমাদেরই সরকার থাকবে, আমরা ওই প্রকল্পের মেয়াদ আরও বাড়িয়ে দেব।”

Advertisement

তিনি বারও বলেন, সামনে বিধানসভার ভোট। অনেক রাজ্য থেকে লোক আসবে, টাকা দেবে।ব্যাঙ্কে টাকা দিয়ে দেবে। সেই টাকা নিয়ে নেবেন কারণ সেটি আপনাদের টাকা, তবে ভোট দেবেন না। পাশাপাশি নির্বাচনের আগে হিংসার পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যবাসীকে সতর্ক থাকার কথা বললেন।

Leave a Reply