অতিরিক্ত চার্জ নেওয়ার শাস্তিতে অপুষ্টিতে ভোগা শিশুদের ডিম খাওয়াবে মেডিকো, ব্যতিক্রমী নিদান স্বাস্থ্য কমিশনের

0
75

#মেডিকো:  অন্যায়ের ক্ষতিপূরণ এবার সমাজসেবা দিয়ে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও অমানবিকভাবে রোগীদের থেকে অতিরিক্ত চার্জ নেওয়ার শাস্তি হিসেবে এবার জুটলো সমাজসেবার বিধান। মেডিকা সুপার স্পেস্যালিটি হাসপাতালকে শাস্তিস্বরূপ সমাজের মঙ্গলের উদ্দেশ্যে ব্যতিক্রমী শিক্ষা দিল রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। অতিরিক্ত চার্জ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি অপুষ্টিতে ভোগা শিশুদের ১০ লক্ষ টাকার ডিম খাওয়ানোর নিদান দিল কমিশন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ঢাকুরিয়ার বাবুবাগানের বাসিন্দা অমিতাভ চক্রবর্তী স্ত্রীকে নিয়ে মেডিকা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ওপিডিতে ডাক্তার দেখাতে যান মাস কয়েক আগে। সেখানে তাঁদের দু’জনের ইনফেকশন কন্ট্রোল চার্জ হিসেবে ২৫০ টাকা করে মোট ৫০০ টাকা নেওয়া হয়। এর প্রতিবাদ করে অমিতাভ বাবু জানান, কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী মাথাপিছু ৫০ টাকার বেশি ইনফেকশন কন্ট্রোল চার্জ হিসেবে নেওয়া যায় না। আর যদি ডাক্তার পিপিই কিট পড়েন তবে তাঁর জন্য ৫০ টাকা চার্জ দিতে হয়। সেই হিসেবে অমিতাভবাবু, তাঁর স্ত্রী এবং চিকিৎসকের ইনফেকশন কন্ট্রোল চার্জ মিলিয়ে হাসপাতালে মোট ১৫০ টাকা বিল করার কথা। কিন্তু হাসপাতালের পক্ষ থেকে বলা হয়, প্রত্যেকের জন্য ২৫০ টাকা‌ করে চার্জ তাঁকে দিতেই হবে।

স্বাস্থ্য কমিশনে অমিতাভ বাবুর সেই অভিযোগের বিরুদ্ধে কমিশন মেডিকো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ডেকে পাঠায়। হাসপাতালের তরফে সাফাই গেয়ে বলা হয় পুরোনো সিস্টেমের বদল না আসায় পুরোনো চার্জ‌ই রয়ে গেছে। এই কথা শুনেই চমকে ওঠেন কমিশনের আধিকারিকরা। কারণ অতিরিক্ত চার্জের ফলে মহামারীর পরিস্থিতিতেও হাসপাতালের তরফে রোগীদের থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে। এই অতিরিক্ত ইনফেকশন চার্জ নেওয়ার নেওয়ার শাস্তি হিসেবে স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান তথা অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ডা. অসীম কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় মেডিকেয়ার বিরুদ্ধে এই ব্যতিক্রমী শাস্তির নিদান দেন।

Advertisement

১০ লক্ষ টাকার এই প্রকল্পের জন্য একটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে। যাতে থাকবেন লেডি ব্রাবোর্ন কলেজের অধ্যক্ষা শিউলি সরকার, স্বাস্থ্য কমিশনের সদস্যা ডা. মৈত্রেয়ী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. বর্ণালি ঘোষ। চাইলে লেডি ব্রাবোর্ন কলেজের ছাত্রীরাও এই উদ্যোগে অংশ নিতে পারেন। ক্যাম্প করে এই ডিম বিলি করা হবে। এর জন্য কলকাতা পুলিশের কমিশনার অনুজ শর্মাকেও চিঠি লেখা হয়েছে।

Leave a Reply