‘পরাজয়ই কংগ্রেসের অভ্যেস হয়ে দাঁড়িয়েছে’, ফের বিস্ফোরক দল-বিরোধী মন্তব্য কপিল সিব্বলের

0
132

#কপিল-সিব্বল: বিহার বিধানসভা এবং একাধিক রাজ্যের উপনির্বাচনের ফলাফলের পর থেকেই কংগ্রেসের অন্দরে শুরু হয়েছে চাপানুতর। একটি সর্বভারতীয় দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দলের বিরুদ্ধে জমে থাকা যাবতীয় ক্ষোভ উগরে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান আইনজীবী নেতা কপিল সিব্বল কটাক্ষ করেছেন, হারই কংগ্রেসের অভ্যেস হয়ে দাঁড়িয়েছে। একইসঙ্গে ফের দলের খোলনলচে বদলের দাবি তুলছেন সিব্বল।

বিহার বিধানসভা নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়েছে কংগ্রেস। বিহারে কংগ্রেসের ভরাডুবি প্রসঙ্গে দলের তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া না মিললেও, মহাজোটের হারের দায় কংগ্রেসের উপরেই চেপে বসেছে। বিশেষ করে ভোটপ্রচারের সময় রাহুল গান্ধী সিমলায় ছুটি কাটাতে যাওয়ার বিষয়টি ভালভাবে নিতে পারেননি কংগ্রেসের নিচুতলার কর্মী এবং জোটসঙ্গীরা। এবার পরোক্ষভাবে গান্ধী পরিবারের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন কংগ্রেসেরই বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বল।

কংগ্রেসে গা-ছাড়া মনোভাব প্রসঙ্গে সিব্বলের মন্তব্য, “বিহার ও সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে কংগ্রেসের খারাপ ফল নিয়ে দলের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়নি। তাঁরা হয়তো ভাবছেন সব ঠিক আছে। পরাজয় দলের অভ্যেস হয়ে দাঁড়িয়েছে।” কংগ্রেসের অন্তর্তদন্ত প্রসঙ্গে সিব্বল কটাক্ষ করে বলেছেন, “গত ছ’বছরে কংগ্রেস যদি আত্মসমালোচনা না করতে পেরে থাকে. তাহলে এখন আর তা সম্ভব নয়। কোথায় ভুল হচ্ছে, কোথায় সমস্যা রয়েছে কংগ্রেস সবটাই জানে। শুধু সেগুলো মেনে নিতে রাজি নয় তাঁরা।”

Advertisement

ফের দলের খোলনলচে বদলের দাবি করেছেন সিব্বল। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, “সাংগঠনিক, সংবাদমাধ্যমে মুখ খোলা, যাঁদের কথা মানুষ শুনতে চায়, তাঁদের তুলে আনা, সক্রিয় নেতাদের কাজে লাগানোর মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমাদের নানা সংস্কারের কাজ করতে হবে।” গুজরাট, মধ্যপ্রদেশের মতো রাজ্যগুলিতে বিধানসভা নির্বাচনে ভাল ফল করলেও উপনির্বাচনে পর্যদুস্ত হয়েছে কংগ্রেস। এই প্রসঙ্গে সিব্বল সাফ জানিয়েছেন, “যে সব রাজ্যে বিকল্প হিসেবে মানুষ আমাদের চাইছেন, আমরা তাঁদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি।”

তিনি আরও বলেছেন, “দলে মতপ্রকাশ, আলোচনার আর কোনও স্থান নেই। তাই সমংবাদমাধ্যমের কাছেই মুখ খুলতে হচ্ছে।” দলের উদ্দেশ্যে তাঁর পরামর্শ, কংগ্রেস আর আগের মতো শক্তিশালী নেই। তাই তাদেরই এগিয়ে গিয়ে বিভিন্ন রাজ্যে প্রয়োজন মতো জোট করতে হবে।” রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, সিব্বল এই মন্তব্যে পরোক্ষভাবে গান্ধী পরিবারের নেতৃত্বের সমালোচনা করেছেন।

Leave a Reply