“হিসাবটা আমরা বুঝে নেব , চলে যা বিজেপিতে” শুভেন্দু অধিকারীকে সরাসরি কটাক্ষ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের

0
144

#TMC     : নাম না করেই আরো একবার শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করলেন রাজ্য সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি তাঁকে ব্যঙ্গ করে বলেন,” দু’‌জনকে প্রেম একসঙ্গে করা যায় না। তাই অবস্থান স্পষ্ট করতে হবে প্রেম কার সঙ্গে তিনি করছেন।” যার পরেই শুরু হয়ে যায় বিতর্ক। এদিন মেদিনীপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীকে এক অনুষ্ঠানে গিয়ে পরোক্ষভাবে খোঁচা দেন। কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি , “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছায়া না থাকলে পুরসভার কাছে আলু বিক্রি করতিস রে, আলু বিক্রি করতিস।” উল্লেখ্য যে, নন্দীগ্রামে সভার পর এখনো পর্যন্ত স্পষ্ট হয়নি শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ। অনেকে মনে তিনি তৃণমূলে থাকবেন, আবার অনেকের সমালোচনা করতে শুরু করেছে যে তিনি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন।

তবে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এদিনের অনুষ্ঠানে শুভেন্দুকে নিশানা করে বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছিলেন বলেই নন্দীগ্রামে আন্দোলন হয়েছিল। আজকে অনেক বড় হতে পারেন। কিন্তু বড় হলেন কার ছায়ায়, সেটাই বড় ব্যাপার।” তিনি আরো বলেন, “হিসাবটা আমরা বুঝে নেব। চলে যা বিজেপিতে। কোনও অসুবিধা নেই। যাবি কংগ্রেসে, চলে যা। তাতেও কোনও অসুবিধা নেই। সিপিএমে যাবি, চলে যা। তাতেও অসুবিধা নেই। দাদার অনুগামী হলে দাদার সঙ্গে চলে যা। তৃণমূল কংগ্রেস করে বেইমানি করলে বাড়ি ঢুকতে দেব না। দেখি কত বড় হিম্মত রয়েছে! বাংলার মাটিতে দেখতে চাই, কোন দাদার কত অনুগামী? লড়াই করতে এসেছি। লড়ে যাব। লড়াইয়ের ময়দানে এক ইঞ্চিও ছাড়ব না। বেইমানদের আগামী দিনে বুঝিয়ে দেব।” এরপর সরাসরি তিনি বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নামে গাছের তলায় বড় হয়েছিস। চারটে মন্ত্রিত্ব পেয়েছিস, চার খানা চেয়ারে আছিস। কত পেট্রোল পাম্প করেছিস! মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে মিউনিসিপ্যালিটিতে আলু বিক্রি করতিস রে, আলু বিক্রি করতিস।” যদিও পাল্টা শুভেন্দু এদিন ঘাটালের সভা থেকে বলেন, “দেখবি আর জ্বলবি, লুচির মতো ফুলবি।”

Advertisement

Leave a Reply