পেনশনভোগীদের জন্য সুখবর! মেয়াদ বাড়ল লাইফ সার্টিফিকেটের

0
91

#লাইফ_সার্টিফিকেট :  করোনার ত্রাসে গোটা দেশ। ধীরে ধীরে জনজীবন স্বাভাবিক হলেও সংক্রমণের ভয়ে কাটছে না কোনোমতেই। করোনার থেকে রেহাই মিলছে না কাউর, তার মধ্যেও বয়স্কদের জন্য উদ্বেগের বিষয় থাকছে বেশি। যদিও ইতিমধ্যে করোনাজয়ী হয়েছেন বহু বয়স্করাই।

তবে এই মুহুর্তে বহু পেনশনভোগীদের চিন্তার বিষয় ছিল ‘লাইফ সার্টিফিকেট’। তাই করোনার জেরেই পেনশনভোগীদের ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দেওয়ার মেয়াদ বাড়ানো হল। জানা যাচ্ছে, আগামী বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ‘জীবন প্রমাণপত্র’ বা ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দিতে পারবেন সমস্ত পেনশনভোগীরা।

হিন্দুস্তান টাইমস্ এর একটি প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের দাবি, এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের ৩৫ লাখ পেনশনভোগী লাভবান হবেন।

Advertisement

শনিবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, “করোনাভাইরাসের মধ্যে প্রবীণদের ঝুঁকির মাত্রা বেশি। সেই পরিস্থিতিতে ‘জীবন প্রমাণপত্র’ বা ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দেওয়ার সময়সীমা বাড়িয়ে আগামী বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত করেছে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন। ইপিএস ১৯৯৫-এর আওতায় পেনশন নেওয়া এবং ওই সময় পর্যন্ত যে পেনশনভোগীরা ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দেওয়ার কথা, তাঁরা এই বর্ধিত সময়সীমার সুবিধা পাবেন। বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী, ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বছরের যে কোনও সময় ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দিতে পারেন পেনশনভোগীরা। ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জারি করার এক বছর পর্যন্ত সেটির বৈধতা থাকে। এরকম পেনশনভোগীরা আগামী বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দিতে পারবেন। একইসঙ্গে মন্ত্রকের তরফে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, যে পেনশনভোগীরা আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ‘লাইফ সার্টিফিকেট’ জমা দিতে পারবেন না, তাঁদের পেনশন চালু থাকবে।”

 

Leave a Reply