“যুদ্ধক্ষেত্রে দেখে নেব…”.গর্জে উঠলেন শুভেন্দু অধিকারী

0
198

#তৃণমূল:   একুশের নির্বাচনের আগে বঙ্গ রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে শুভেন্দু অধিকারী। যত দিন গড়াচ্ছে ততই যেন শুভেন্দু ও তৃণমূলের দূরত্ব বাড়ছে। তৃণমূলের আঁতুড় ঘর নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়েই রীতিমতো গর্জে উঠলেন তিনি। রীতিমতো বিদ্রোহের সুরে তিনি জানান, “যুদ্ধক্ষেত্রে দেখে নেব…”। তৃণমূল সুপ্রিমোকে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন তিনি। পাশাপাশি গোটা জেলা জুড়ে “আমরা দাদার অনুগামী” পোস্টারে ছেয়ে ফেলা হয়। এরপরই নড়েচড়ে বসে জোড়া ফুলবাহিনী।

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন যতই সামনের দিকে এগিয়ে আসছে, ততই যেন বাংলার রাজনীতির ছবিটা বদলে যাচ্ছে। যে নন্দীগ্রাম আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) তৃণমূল কংগ্রেসের উত্থানের পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছিল, সেই নন্দীগ্রামেই এবার তৃণমূল বিরোধী কথা বলছেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন, বিধানসভা নির্বাচনের আগেই তৃণমূল কংগ্রেস (Trinamool Congress) ছেড়ে বিজেপিতে (BJP) যোগ দিতে চলেছেন রাজ্যের এই হেভিওয়েট নেতা। যদিও এই ব্যাপারে এখন প্রকাশ্যে কিছু বলতে চাননি পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ৪৯ বছরের এই নেতা।

তৃণমূল সাংসদ হিসেবে বরাবরই তৃণমূল বিশ্বস্ত হিসেবে পরিচিতি ছিল শুভেন্দুর। কিন্তু, তিনি যে দলের মধ্যে থেকেই বিকল্প শক্তি হিসেবে মাথাচাড়া দেবেন, সেটা বোধহয় কেউ কল্পনা করতে পারেননি। তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দু’বার তিনি সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তবে নন্দীগ্রাম বিক্ষোভ থেকেই প্রচারের আলোয় উঠে এসেছেন শুভেন্দু।

Advertisement

 

Leave a Reply