শুভেন্দু ইস্যুতে মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ, পাশাপাশি ক্ষোভ উগড়ে দিলেন শাসক দলের উপর

0
120
পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন প্রয়োজন, তবেই সঠিক নির্বাচন সম্ভব, দাবি দিলীপের

শুভেন্দুকে ঘিরে শাসক শিবির তৃণমূলের অন্দরে জোর কোন্দল দেখা দিয়েছে। এমনকি তার বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়েও তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে। শুধু তাই নয় বেশ কয়েকদিন ধরেই দলের বিধায়কদের অসন্তোষের কারণে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি যোগ দিয়েছেন অনেকেই। যার জেরে ফাটল দেখা গিয়েছে জোড়া ফুল শিবিরে। একুশের নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই শাসক দলের অন্তর্দ্বন্দ প্রকাশ্যে আসছে। এবার তাকেই শিলমোহর দিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষে।

শুক্রবার সকালে মানিকতলায় কালীপুজোর উদ্বোধন করতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “ওদের পার্টির মধ্যে ভাঙা-গড়া চলছে। পরস্পরের মান ভঞ্জন চলছে। এটা ওদের সমস্যা। তবে এতে ওদের দলের কর্মীরা হতাশ। যে পার্টি ক্ষমতায় আছে তা আজ ভেঙে যাচ্ছে। শুভেন্দু বড় নেতা,মন্ত্রী তিনি কী করবেন সেটা ওনার ব্যাপার। সবাই বলছে, উনি বিজেপিতে আসছেন। কিন্তু আমার জানা নেই। পিকে এখন ড্যামেজ কন্ট্রোলার হয়েছে। পার্টি এখন আড়াআড়ি ভাবে ভাগ হয়ে যাচ্ছে।”

এদিন তিনি শুভেন্দু ইস্যুতেও মুখ খোলেন। তিনি জানেন যে শুভেন্দু বিজেপি আসবেন কিনা সেই নিয়ে
তাঁর সঙ্গে আপাতত কোনো কথা হয়নি। তবে তিনি সাফ জানিয়ে দেন যে যদি কেও বিজেপি যোগ দিতে চায় তাঁকে বিজেপি স্বাগত জানাবে। বিজেপির দরজা সর্বদাই খোলা আছে। বিজেপি সাংসদ বলেন, “আমাদের সঙ্গে কোনও কথাবার্তা হয়নি। কোনও মেসেজ এখনও আসেনি। সেটা নিয়ে আপনারা চিন্তা করবেন না। অনেক মানুষ আসছেন, আসবেন। কেউ এলে আমরা নেব, আমাদের পার্টির যে কার্য পদ্ধতি আছে, আদর্শ আছে তা নিয়েই বাংলা পরিবর্তনের চেষ্টা করছি। কেউ যদি এই লড়াইয়ে শামিল হতে চায়। আমরা স্বাগত জানাব।” এরপর তিনি বলেন, “গত কয়েক বছরে বাংলা বিজেপির ১২০ জন কর্মী প্রাণ দিয়েছেন। তাই লোকে আমাদের ১৮ টা সিট দিয়েছেন। আগামী ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে মানুষ বিজেপিকে ক্ষমতায় নিয়ে আসবেন। সেই দিকে লক্ষ্য রেখে আমরা কাজ করছি।”

Advertisement

উল্লেখ্য এদিন উদ্বোধনে অনুষ্ঠানে গিয়ে দিলীপ ঘোষ শাসক দলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দেন। বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। বললেন, পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে তাতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে। পাশপাশি গতকাল দিলীপ ঘোষের কনভয়ে হামলা নিয়ে তিনি সরব হন। তিনি বলেন, “গতকাল আমার উপর আক্রমন করে ওরা বুঝিয়ে দিল প্রধানমন্ত্রী যা বলছেন তা ঠিক।”

 

 

Leave a Reply