চিন নয়, ভারতে প্রাদুর্ভাব করোনার, আজব দাবি চিনা গবেষকদের

0
216

করোনার উৎপত্তি হয়েছে চিন নয়, ভারতে। এমনটাই আজব দাবি করল একদল চিনা গবেষক। তাদের বক্তব্য ২০১৯ এ গ্রীষ্মকালে ভারতে পশুর থেকে জলবাহিত হয়ে এই ভাইরাস নাকি মানুষের শরীরে ঢুকে পড়েছে। তার থেকেই নাকি বিশ্বজুড়ে এই ভয়ানক মহামারী। যা নিয়ে ২০২০ এর শেষে এসেও ধুঁকছে সারা বিশ্ব। এর আগে করোনার উৎপত্তি স্থল হিসবে ইউরোপকে দায়ী করেছিল চিন। যদিও সে দাবি ধোপে টেকেনি।

প্রসঙ্গত করোনার প্রাদুর্ভাব নিয়ে বছরের শুরুতে সারা বিশ্ব কাঠঘোরায় তুলেছিল চিনকে। সবাই এক বাক্যে মেনে নিয়েছিল যে চিনের উহানের সামুদ্রিক খাবারের বাজার থেকেই ছড়িয়েছে কোভিড-১৯। সেখান থেকে ইউরোপ। তারপর আমেরিকা, এশিয়া, একে একে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পরে এই মহামারী। প্রথমদিকে করোনার প্রাদুর্ভাব যে চিনেই তা মানতে নারাজ ছিল বেজিং। ইউরোপের দিকে আঙুল তুলে দায় ঝেড়ে ফেলার চেষ্টাও করে তারা। গবেষকরা দাবি করেছিল, ইউরোপে প্রথম ছড়িয়েছে কোভিড-১৯। চিন তার জন্মস্থল নয়।

তবে সম্প্রতি চিনা গবেষকদের আজব দাবিতে তাজ্জব সবাই। এবার করোনার উৎস হিসেবে ভারতকে কাঠঘোরায় তুলল চিন। ইন্দো-চিন সীমান্ত বিবাদের মাঝে এমন দাবি ঘিরে স্বাভাবিকভাবে উঠছে নানা প্রশ্ন। ভারত ছাড়াও আরও সাতটি দেশ রয়েছে সেই তালিকায়। বাংলাদেশ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গ্রিস, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, চেক প্রজাতন্ত্র, রাশিয়া অথবা সার্বিয়া।

Advertisement

কোভিড-১৯-র বংশানুক্রমিক (phylogenetic) বিশ্লেষণ করে চিনা গবেষক দল দেখেছে, ভারত ও বাংলাদেশে এই ভাইরাসের পরিবর্তন একেবারে সামান্য হয়েছে। ভৌগলিকভাবে দুই দেশ চিনের প্রতিবেশী। ওই দুই দেশ থেকে ভাইরাস চিনে আসতেই পারে বলে দাবি গবেষকদের। উহানে ভাইরাসের উৎপত্তি হয়নি।

গবেষকদের যুক্তি, গরম কালে জলের অভাব হয়। একটু জলের জন্য বাঁদররা নিজেদের মধ্যে লড়াই করে। তখনই মানুষ ও পশুর মধ্যে সংস্পর্শের সম্ভাবনা বাড়ে। পশুর থেকে মানবশরীরে SARS-CoV-2-র সংক্রমণে প্রচণ্ড গরম কারণ হতে পারে।

Leave a Reply