‘গণতান্ত্রিক দেশে কেউ ভোটে লড়তে চাইলে বাধা দেব কী করে?’ ওয়াইসির দল প্রসঙ্গে মন্তব্য দিলীপ ঘোষের

0
207

#দিলীপ-ঘোষ: বিহারে ২৪টি আসনে নির্বাচনে লড়ে ৫টি আসন জিতেছে আসাদউদ্দিন ওয়াইসির দল অল ইন্ডিয়া মজলিস-এ ইত্তেহাদুল মুসলিমিন’ (এআইএমআইএম)। এবার পশ্চিমবঙ্গেও নিজেদের মাটি শক্ত করতে চাইছে ওয়াইসির দল। আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার বেশ কিছু জেলায় প্রার্থী দেবে আসাদউদ্দিন ওয়াইসির দল। ইতিমধ্যেই তৃণমূল, বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস ওয়াইসির দলকে বিজেপির ‘বি-টিম’ বলে নামাঙ্কিত করে আক্রমণ শুরু করেছে। এই প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রশ্ন তুলেছেন, “গণতান্ত্রিক দেশে কেউ ভোটে লড়তে চাইলে বাধা দেব কী করে?”

উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু অধ্যুষিত মালদা, মুর্শিদাবাদ, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন ওয়াইসি। এই প্রসঙ্গে তৃণমূল তথা কংগ্রেসের দাবি, সংখ্যালঘু ভোট কেটে বিজেপিকে সুবিধা করে দিতেই পশ্চিমবঙ্গে আসছে মিম। যদিও তা মানতে নারাজ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এদিন দিলীপবাবু এ রাজ্যের অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলিকে কটাক্ষ করে বলেন, “মুসলিম ভোট আমরা নিয়ন্ত্রণ করি না। এরাজ্যে মুসলিমরা বিজেপিকে ভোট দেন না। অন্য রাজ্যের কথা বলতে পারব না। যদি এখানকার মুসলিম ভোটাররা সিপিএম, কংগ্রেস, তৃণমূলকে না দিয়ে অন্য কাউকে দেন, তাহলে ধরে নিতে হবে তারা ধোঁকা দিয়েছে। সে কারণেই বিকল্প খুঁজছেন মুসলিমরা।”

Advertisement

প্রসঙ্গত, বিহারে বিরোধীদের অভিযোগ তুলেছিলেন এআইএমআইএম সেখানে ভোট কেটে বিজেপির সুবিধা করে দিয়েছে। যদিও তথ্যপ্রমাণ পেশ করে এই অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছেন দলের সুপ্রিমো। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন, “মিম রাজনৈতিক দল। সাংবিধানিক অধিকারেই বাংলায় এসে কাজ করলে কেউ মানা করতে পারবে না।” একইসঙ্গে তিনি এও জানিয়েছেন, “বিজেপিতে এখনো আস্থা খুঁজে পান না মুসলিমরা। তবে ধীরে ধীরে প্রবণতা বদলাচ্ছে।”

Leave a Reply