‘কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন দফতরের টাকা মুখ্যমন্ত্রী কোন খাতে খরচ করেছেন?’ মমতা সরকারকে খোঁচা দিয়ে প্রশ্ন মালব্যর

0
123

#অমিত-মালব্য: বাংলা জয়ের চেষ্টার কোনও খামতি রাখছেন না মোদী-শাহরা। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের রণনীতি ঠিক করতে একের পর এক কেন্দ্রীয় নেতাকে বাংলায় পাঠাচ্ছেন অমিত শাহ। সম্প্রতি বঙ্গ বিজেপির সহ-পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দিয়ে বাংলায় পাঠানো হয়েছে বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্যকে। বাংলায় এসেই হিসেব কষার কাজে নেমে পড়লেন এই তরুণ ব্যাঙ্কার। এদিন মালব্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বাধীন সরকারের কাছে জবাবদিহি চাইলেন যে করোনা কালে গ্রামোন্নয়ন দফতরের টাকা কোন খাতে খরচ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার বাংলায় পা রেখেছেন অমিত মালব্য। আসার পর থেকেই সক্রিয়ভাবে কাজেও লেগে পড়েছেন মালব্য, ইতিমধ্যেই সেরেছেন উত্তরবঙ্গ সফর। অর্থাৎ তিনি যে একেবারেই সময় নষ্ট করতে চাইছেন না, তাও মালব্যর কর্মসূচি থেকেই স্পষ্ট। এরইমধ্যে শুধু হলো শাসকদলকে আক্রমণের পালা।

আজ একটি সর্বভারতীয় পত্রিকার প্রতিবেদন তুলে ট্যুইট করেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান। সেই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে লকডাউন চলাকালীন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রক রাজ্যগুলিকে ৬টি কিস্তিতে মোট ৪৯,২৭০ কোটি টাকার অর্থ সাহায্য করেছে, যার মধ্যে মোট ৫,৯২৬ কোটি টাকা পেয়েছে বাংলা।

Advertisement

বাংলাই দেশের রাজ্যগুলির মধ্যে গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের থেকে সবচেয়ে বেশি সাহায্য পেয়েছে। সেই টাকার কী হল, কোন খাতে খরচ হলো, সেটাই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জানতে চান মালব্য। রাজ্যে শ্রমিক এবং গরীব মানুষরা যে এখনও চরম দুর্দশায় রয়েছেন, একথা জানিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এদিন হিসেব চান মালব্য। যদিও তৃণমূলের তরফে এখনো পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

প্রসঙ্গত, স্বভাবতসিদ্ধ ভঙ্গিমাতে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনেও কেন্দ্রের আর্থিক বঞ্চনার ইস্যুকে অন্যতম অস্ত্র করবে তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যদিকে, আমফান পরবর্তী সময় রাজ্যে এসে প্রাথমিকভাবে ১ হাজার কোটি টাকার সাহায্য ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। আবার পরবর্তীকালে অমিত শাহ নেতৃত্বাধীন কমিটি বাংলার জন্য অতিরিক্ত ২৭০৭.৭৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। অর্থাৎ, মুখ্যমন্ত্রীর কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ যে একেবারেই ভুয়ো তা প্রমাণ করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

Leave a Reply