পুজোর শেষে ট্রেনের সংখ্যা বাড়লেও দেখা নেই যাত্রীদের, চিন্তায় রেল

0
86

দীর্ঘ সাত মাস পর গত বুধবার থেকে ট্রেনের চাকা গড়াতে শুরু করেছে বাংলায়। তবে অফিস আওয়ারে ট্রেনের সংখ্যা বাড়লেও কর্মব্যস্ত দিনে দেখা নেই যাত্রীদের। এদিন মঙ্গলবারই দক্ষিণ পূর্ব রেলে ট্রেনের সংখ্যা ৮১টি থেকে বাড়িয়ে ৯৫ করা হয়েছে। কিন্তু পর্যাপ্ত ট্রেন থাকলেও যাত্রীর সংখ্যা কমে তিন ভাগের এক ভাগ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনটাই জানাচ্ছে রেল।

প্রসঙ্গত কালীপুজো, দীপাবলি, ভাইফোঁটা পেরিয়ে মঙ্গলবার কর্মব্যস্ত দিনেও হাওড়া, শিয়ালদহে তেমনভাবে বাড়েনি যাত্রীর (Pasengers) সংখ্যা। ট্রেন চালু হওয়ার প্রথম দিন থেকে দুই ডিভিশনে গড়ে দৈনিক সাড়ে নয় থেকে দশ লক্ষ যাত্রী হচ্ছিল। যেখানে ত্রিশ লক্ষ মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করেন।

উদ্বেগ প্রকাশ করে রেলকর্তারা জানিয়ে ছিলেন, “পুজোর ছুটি চলছে, মঙ্গলবার থেকে সংখ্যাটা অনেকটাই বাড়তে পারে। এই আশাও মাঠে মারা গেল। পূর্ব রেলের হাওড়া, শিয়ালদহ দুই ডিআরএম জানান, যাত্রী সংখ্যা এদিন প্রায় একই রয়ে গেল। সাধারণ দিন হলেও যাত্রী বাড়েনি”।

Advertisement

হাওড়ার ডিআরএম ইশাক খান বলেন, “অতিরিক্ত ভিড়ের আশঙ্কা থেকে যাওয়ায় আমার ঘরে সিসিটিভি লাগিয়ে নজর রাখা হয়েছিল। অবস্থা দেখে স্পষ্ট ট্রেনে (Local Train) ভিড় হচ্ছে না। অফিস টাইম বাদে সবটাই ফাঁকা।”

এদিকে হাওড়া, শিয়ালদহ স্টেশনগুলিতে ব্যারিকেডের সংখ্যা এত বেশি যে আরপিএফ থেকে টিটিইরা চরম অস্বস্তির মধ্যে পড়েছেন। শিয়ালদহ ডিআরএম এসপি সিং বলেন, “ব্যারিকেড করে যাত্রীদের বের করে না দিলে কনকোর্স এলাকায় ভিড় বাড়বে। তাতে সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যাবে। তবে যাত্রীরা সচেতন বলে জানান ডিআরএম তাদের ৯৫ শতাংশ মাস্ক ব্যবহার করছেন, মানছেন বিধি নিষেধ।”

Leave a Reply