করোনা আবহে বিরজু মহারাজ সহ মোট ২৭ জন শিল্পীকে সরকারি আবাসন খালি করার নোটিশ পাঠালো কেন্দ্র !

0
55

নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা আবহেই মোট ২৭ জন প্রবাদপ্রতিম শিল্পীকে সরকারি আবাসন খালি করার নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় সরকার। শিল্পীদের তালিকায় রয়েছে প্রবাদপ্রতিম কত্থক শিল্পী বিরজু মহারাজ, চিত্রশিল্পী যতীন দাস, সন্তুরবাদক ভজন সোপোরি, মোহিনীঅট্টম শিল্পী ভারতী শিবাজীদের নামও। কেন্দ্রের তরফে নোটিশে জারি করে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এই শিল্পীদের আগামী ৩১শে ডিসেম্বরের মধ্যে দিল্লির সরকারি আবাসন খালি করে দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকারের এমিনেন্ট আর্টিস্ট কোটায় এই ২৭ জন শিল্পী নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নয়া দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় বাজার দরের অনেক কম মূল্যে বাড়ি পেয়েছিলেন। অনেক আগেই সেই মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে, তাই এবার উচ্ছেদের নোটিশ পাঠালো কেন্দ্র।

কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রক সাফ জানিয়েছে যে অনেক আগেই এই শিল্পীদের নির্দিষ্ট সময়ের মেয়াদ শেষ হয়েছে, তাই মেয়াদ আর কোনওভাবেই বাড়ানো সম্ভব নয়। জানা যাচ্ছে, ২০১৫ সালেও একবার এই ধরণের নোটিশ জারি করা হয়েছিল। উল্লেখ্য, এই শিল্পীদের অধিকাংশই এইসব আবাসনে গত ২০ বা ৩০ বছর ধরে বসবাস করছেন।

Advertisement

মেয়াদ শেষের পর বাড়ি ছাড়ার নোটিশ দেওয়া বেআইনি নয়, তা শিল্পীরা ভালোভাবেই জানেন। তবে তাঁদের বক্তব্য যে বিষয়টি আইনের অধিক সম্মান ও মানবিকতার। বছরের পর বছর ধরে বিশ্ব দরবারে যাঁরা ভারতীয় শিল্প-সংস্কৃতির নাম উজ্জ্বল করছে, সরকারের কি তাদের প্রতি কোনো দায়িত্ব, সম্মান বা নিদেনপক্ষে সহানুভূতিটুকুও নেই!

চিত্রশিল্পী যতীন দাসের কথায়, “এই মুহূর্তে কোথায় যাব? আমারা তো বিনা পারিশ্রমিকে কেন্দ্রের বহু প্রকল্পে কাজ করি। আজ আমাদের এমন বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে কেন?” এই প্রসঙ্গে বিরজু মহারাজ জানান, “এই অতিমারীর আবহে এই বয়সে আমি কোথায় বাড়ি খুঁজতে বার হবেন? যাঁরা বাড়ি ছাড়ার নোটিশ পাঠাবেন তাঁদের কী আরও একটু সংবেদনশীল হওয়ার প্রয়োজন ছিল না?” গত ৪২ বছর ধরে শাহজাহান রোডের বাড়িটিতে থাকেন বিরজু মহারাজ। শেষ বয়সে এই স্মৃতি বিজড়িত আস্তানা ছাড়তে চান না তিনি। ইতিমধ্যেই গোটা বিষয়ের বিহিত চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন বিরজু মহারাজ।

Leave a Reply